প্রেম

লেখক:

নওশাদ জামিল

 

জীবন তো এক কানামাছি খেলা। যদি

সাগরে লুকাবে, যদি সমাহিত হবে

বালুকাবেলায়, তবে কেন অভিমান?

প্রেমের সরণি ধরে হেঁটে যেতে যেতে

চোখে পড়ে সবুজ বনানী, কুঁড়েঘর

আমরা না হয় ওই ঘরে কাটিয়েছি

দিনগুলি, আবেগের সেই মেঘগুলি

হাওয়া এসে, রোদ এসে ভাঙিয়েছে ঘুম

সবুজ পাতার ফাঁকে বসেছে পাখিরা

ডেকেছে মধুর আর ঢেলেছে মধুর।

 

সব ফেলে নেমেছি সাগরে, ভাসিয়েছি

সমস্ত দেনার বোঝা, তবু দিন দিন

নিঃস্ব হতে গিয়ে, শামত্ম হতে গিয়ে আমি

হয়েছি উত্তাল। তবু শ্বাপদ সন্ধানী

হয়ে আজ হিংস্রতায় ছুঁয়ে ছুঁয়ে যাই

তোমার চিবুক, অশ্রম্নবিন্দু। একরাশ

রংধনু ভাসার পরে মিলিয়ে মিলিয়ে

ছেড়ে দিই সব নীল, সমুদ্রশুক্রাণু।

 

ঈর্ষা নয়, ঘৃণা নয় মানুষের মন

কী চায়, কী চায়? যদি সাগরের মতো

বিশাল না হবে, তবে কেন তুমি তারে

ভাসালে গভীর স্রোতে? প্রেমের সাগরে

ঢেউ থাকে, অসংখ্য হাঙর থাকে। তবু

হাত ধরে হেঁটে যাচ্ছি বালুকাবেলায়

পায়ের আলতো ছাপ মুছে দিচ্ছে ঢেউ।

 

সমস্ত শরীরে বালি মেখে, জলে ভিজে

দাঁড়িয়েছি ঢেউয়ের ফণায় – জীবনের

দায়-দেনা আর নেই। মরণের সঙ্গে

জীবন জেগেছে, প্রেম এসে জাগিয়েছে

ভালোবাসা – আমার তো আর ভয় নেই!

সোশ্যাল মিডিয়া

নিউসলেটার