বলিনি লিখবো না

লেখক:

আহসান হামিদ

 

লিখিনি ব’লে লিখবো না কিছু – তা তো বলিনি।

বলেছি শ্রাবণ মেঘের দিনে ফিরে আসবো একা-একা

তোমার নিকনো উঠোনে। তুমুল বৃষ্টিতে নৃত্যরতা তোমাকে নেবো

বুকে টেনে। এ তৃষিত ঠোঁট ছোঁয়াবো আশ্লেষে

ওই দুটি ভেজা ওষ্ঠচূড়ে। তখনই লেখা হ’য়ে যাবে ঠিক

চিরকালের অবিনাশী এক যুগল কবিতা।

 

লিখিনি ব’লে লিখবো না – বলিনি এমন কোনো কথা।

তুমি ঘুমের অতলে তলিয়ে গেলে ছিন্ন ক’রে দেবো

শরীরের সমূহ আড়াল। মুগ্ধ পর্যটক হ’য়ে দেখবো

অনিন্দ্য পাহাড়ের সানুদেশ, বন-উপবন, উপত্যকা।

জানবে না কখনো লাবণ্য চুরি হ’তে-হ’তে হ’য়ে উঠেছো

আরও ঐশ্বর্যশালিনী। সে ঐশ্বর্যপ্রভা থেকে

চয়ন করবো যৌবনের অমর উজ্জ্বল পঙ্ক্তিমালা।

 

লিখিনি ব’লে লিখবো না তোমাকে নিয়ে – এমন দিব্যি দিইনি আজো।

বৈশাখের ঝড়ো গোধূলিতে অরণ্য থেকে অরণ্যে

ছুটে বেড়াবো পাশাপাশি। হঠাৎ হাওয়ার ঘূর্ণিতে

পড়বে ঝ’রে শুকনো পত্রপুষ্প, দু-একটি মরা শাখা।

নিপুণ নীড়ে কেঁপে উঠবে ভীত যতো কপোত-কপোতী।

হঠাৎ বিদ্যুচ্চমকে শব্দের বুদ্বুদে খুঁজে পেয়ে যাবো

নান্দনিক উপমা-প্রতীক আর শাশ্বত চিত্রকল্প।

সোশ্যাল মিডিয়া