শব্দবিষয়ক (কবি শক্তি চট্টোপাধ্যায়কে নিবেদিত)

লেখক:

মাহমুদ কামাল

যথাশব্দ শব্দহীন নয়

শব্দের বিবাহ যদি হয়

শব্দবিদ্যা তখন অক্ষয়।

 

সারাদিন যত ধ্বনি ঠোঁটে

সেভাবেই গাছে ফুল ফোটে

সেভাবেই সূর্য হেসে ওঠে।

 

সে-হাসির অন্তরালে কেউ

সে-হাসির অন্তরালে ঢেউ

সে-হাসির অন্তরালে সে-ও।

 

তার নাম খুঁজে বের করো

যদি কাঁপে দৃঢ় অন্তরও

না পারলে কণ্ঠ চেপে ধরো।

 

সাধিত জীবন সেই মতো

রাগ-অনুরাগে বিব্রত

হোক শব্দ ক্ষত-বিক্ষত।

 

জীবনের যতটুকু ভালো

শব্দময় বিভৃতির আলো

মৌলিক তত জমকালো।

 

শব্দরূপ তবু অন্তরীণ

না না অর্থে ঘোরে সারাদিন

যাপনের তারা কৃতঋণ।

 

ভুলশব্দ তবু কথামৃত

চলমান থেকে আহরিত

ওই কথা মধু সংবিৎ-ও।

পুত্র নয় ছিলে পিতৃসম

সেই কবে আদি তৎসম

তদ্ভব  রূপে অনুপম।

 

শব্দের ফুল তুলে আনি

সাজিয়ে-গুছিয়ে ফুলদানি

খুনি খায় সব দানাপানি।

 

সারাদিন ভুল শব্দাবলি

এখানে-ওখানে কানাগলি

তবু শব্দ তবু কথাকলি।

 

নদী ও নারীর যত শাখা

শব্দের মূলে আংরাখা

এসো খুলি মনীষার পাখা।

 

যুক্ত হোক ছন্দ রমণীয়

লাবণ্যের শোভা-শুচি-প্রিয়

বদলে যাবে বাঁকভঙ্গি-ও।

 

ঘটে গেছে বর্ণবিপর্যাস

সেই সাথে গূঢ় সর্বনাশ

এসো করি অক্ষয়ের চাষ।

 

যথাশব্দ শব্দহীন নয়

শব্দে শব্দে যদি বিয়ে হয়

শব্দবিদ্যা তখন অক্ষয়।

 

দূর হোক বর্ণবিপর্যাস

গড়ে তুলি ভাষার নির্যাস

দৃঢ় হোক বর্ণবিপর্যাস।

শেয়ার করুন

Leave a Reply