রীপা রায়

ধুলা-উড়ানিয়া মাটির টানে

মিশে যাচ্ছে পাখির মাত।

কোথাও কিছু জমছে ধ্বনি

ফুটবে বলে অষ্টধাত।

ব্যসনবোধির ব্যাপন দিন

যাচ্ছে চলে ভালোয় ভালোয়।

ট্র্যাপিজ ঘেরা কালক্ষেপণ

অনুধ্যানে মৃদু লয়।

পুত্রলাভে কুন্তির গান

প্রকীর্ণ স্বর কুরঙ্গ লুট।

বালিতটে সাগরলতা

লাল কাঁকড়ার জটাজুট।

মুদ্রার খেল নিপাট তাল

শাস্ত্রের বোল গুলিয়ে গেল।

সমুদ্র, আকাশ, মাটির ত্রিটান

দোহার, গায়েন মাতিয়ে নিল।

নিত্য বাঁধন, সিদ্ধ-গন্ধী

ঘাই দিয়ে যায় ভেদাভেদে।

দুষবো কাকে? প্রাণ আছে যার

জীবন শুধু তাকেই বলে?

‘ধুতে হবে মুছতে হবে’

প্রাণগন্ধী উত্তরণে।

সময় এত রা কাটে না

কণ্ঠাভরণ জনে জনে।

আবার যদি ফিরবে মাটি

চোখ-পোড়া বিষ ঢালবে না তো?

আতিশয্যের বাহার ফেরা

উৎকীর্ণ শংকা যত।

নামমুদ্রা আছে কিন্তু

নামকরণ তোমার গুণে।

চিত্তসুধা ধুলায় ঢেলে

ঘর মস্কো অন্তরণে।

Leave a Reply