কবিতা সবসময় সত্যিকথা বলে

লেখক:

রবিউল হুসাইন

 

ভালোবাসা দুই রকমের –

মনোমিলনের আর মনোমালিন্যের

 

বিয়েও এমনতরো হয় প্রেমও

অথবা হয় না হলেও ভেঙে যায় কখনো কখনো

 

এমতো বিয়েও দুই ধরনের – মূলত মেয়েদের জন্যে

বন্দোবস্তের এবং বসত্মাবন্দির পছন্দ থাকে না কোনো

 

সাধারণত এই পুঁজিবাদী সামন্তচক্রে

ভালোবাসা বা বিয়ে একটি উপযুক্ত পৃষ্ঠপোষণতার

সমাজতাত্ত্বিক ব্যবসা হিসেবে

সেই আদিকাল থেকেই প্রচলিত

এই পুরুষ দ্বারা শাসিত সমাজে

 

যৌবনে পৌঁছানো ছেলেমেয়েরা বাজারের পণ্য হয়ে

শরীরশাস্ত্র অনুযায়ী বংশবিসত্মারী

সমর্থতা অর্জন করে থাকে

স্বয়ংক্রিয়ভাবে অমোঘ প্রাকৃতিকতায়

 

এই সময়েই বিপরীতধর্মী সঙ্গীদের প্রতি

যে যৌন-আকর্ষণ তৈরি হয় সৃষ্টির প্রেক্ষেতে

সেটাকেই ভালোবাসা বা প্রেম বলে

প্রমাণিত এই বিশ্বসমাজ-সংসারে

 

ভালোবাসা বা বিয়ে বিষয়টি জীবনবীমাময়

দৃশ্যমান শ্রী শ্রেণি ও সম্পত্তি-নির্ভর মনো-ব্যক্তিত্বতার ধূর্ত

গণ ও গুণরঞ্জক ইহজাগতিকতায় প্রক্রিয়াটি

নতুন প্রজন্ম সৃষ্টিতে সহায়ক ভূমিকা

পালন করে আসছে সর্বজনীনতায়

 

ভালোবাসা মানে পরস্পরের প্রতি সম্মানবোধ

আর শ্রদ্ধাজাগানিয়ার পরম্পরা

গাছে যেমন ফুল ফোটে, মনুষ্যবৃক্ষ তেম্নি

ভালোবাসা আর কবিতায়

 

কবিতা সবসময় সত্যিকথা বলে

ফুলেল সেই ভালোবাসায়