কুয়াশায় ডুবে আছে নদীগণ

লেখক:

জাহাঙ্গীর ফিরোজ

কুয়াশায় ডুবে ছিল বাড়িঘর নদী
চশমার কাচে মেঘ, ডুবেছিল চোখ;
আজ ঘড়ির কাঁটায় ভোর – সকাল দুপুর রাত।
এই কুয়াশাভেজা দিনে তুমি অসুখের চাদর জড়িয়ে শুয়ে আছ
শীতার্ত, মঙ্গায় পুষ্টিহীন জড়সড় কুঁকড়ে আছ তুমি
সন্ধ্যা নদীর জলে ক্রন্দনের ধ্বনি…
তবু উত্তরে-দক্ষিণে মেরুপ্রভাতের বর্ণিল আলোর ঝরনা নাচে
শ্বেতশুভ্র ভল্লুকের লোমে।
এখানে বরফ নেই, তুষার পড়ে না
তবু ভাল্লুকে জ্বরে ক্ষণে ক্ষণে কেঁপে ওঠে বাংলাদেশ।

হে পৃথিবী, তোমার এ অঞ্চল থেকে বেত্রবতী কালীগঙ্গা
লৌহজং ধলেশ্বরী সুরমা ডাহুকি
আরো বহু স্বচ্ছতোয়া
খরায় হারিয়ে গিয়ে কুশায়ার মাঝে ডুবে আছে।

আজ সারাদিন শুধু কুয়াশা
আজ সারাদিন শুধু জড়সড়
আজ অসুখের চাদরটি মুড়ি দিয়ে
খোয়াড়ির মাঝে ডুবে আছে বাংলাদেশ।

এদিকে সকল নদী গভীর অসুখে মুমূর্ষু
শুশ্রূষায় কেউ নেই
শিয়রের পাশে বসে গুটিকয় বিষণ্ণ স্বজন
কোরআন পড়িছে।

হে নদী – নদীগণ, জেগে ওঠো ঐশ্বরিক ক্রোধে
বাঁধ ভেঙে নেমে এসো সমুদ্র ডেকেছে তোমাকে।