মাহবুব বারী

নিশ্বাসের মতোই নিকটে ছিল

তবু তোমার কাছে পৌঁছতে গিয়ে

কত সময়ের সমুদ্র পাড়ি দিলাম, জানি না

আমার বিপন্নতার কথা আর কী বলব বন্ধু

ঈশ্বর আর আমার প্রেমিকার মধ্যে সেই পুরনো লড়াই

আমি কার হাতের পুতুল, কার কথায় নাচি।

কত ভাগ্যাহতকে দেখলাম,

আমার সৌভাগ্য,

তাদের কাফেলায় আমার নামও আছে।

যারা পানপাত্রে বিভোর তাদের মূর্খতা দেখে

আমার করুণা হয়, তারা তোমাকে দেখেনি।

চিত্রকর নারীর নগ্নতার মধ্যে কী সৌন্দর্য খুঁজে পায়, জানি না

আড়ালে আবৃত যৌবনের উঁকি – ওরা কি কখনো দেখেনি।

মৃত্যুভয়ে তো সর্বদাই সন্ত্রস্ত থাকি

নির্ভয়ে মৃত্যুবরণও তো করতে পারব না!

হৃদয় তো শুধু এক টুকরো মাংসপিণ্ড

সে কেমন করে এত বাসনার কথা বলে!

কী অদ্ভুত স্বভাব তোমার

একবার প্রকাশ্য হও, একবার রহস্যে অন্তর্লীন।

মিথ্যা আশ্বাসে নিজেকে ভুলিয়ে রাখি সারাক্ষণ

সে তো আসবেই, শুধু পথের দেরিটুকু অপেক্ষা।

এই হৃদয়ে তো কোনো বাসনাই ছিল না

তবু এত কষ্ট কীসের? বন্ধু;

বাসনাশূন্যতাই কি এর কারণ?

এত সুন্দর এত বিনম্র

আর লতানো স্বভাব দেখে মুগ্ধ হয়ে যাই –

কিন্তু কী করে ভুলি, তুমিও ছোবল দিতে জানো।

সাধ হয় হাসি হয়ে তোমার অধরে ভাসি

আর মর্মের কথা হয়ে খেলে যাই তোমার চকিত চোখে।

Leave a Reply