জল পড়ে পাতা নড়ে

লেখক:

ইমরোজ সোহেল

 

‘জল পড়ে পাতা নড়ে’… আমি তো নড়ি না

পাতার মতন আমি পেতে আছি পাটি

তুমি জল হয়ে পড়ো আমার ঘাঁটিতে

আমি নড়ে নড়ে খাঁটি হয়ে যাই!

 

খাঁটি হওয়া এতই সহজ?

সবকিছু ভরে আছে খাদে, সোনা-দানা তাও

সত্যের ভেতর খাদ

খাদভর্তি হাড়ে গড়া মিথ্যার পাও

দুঃখ এক কোণে পুষে রাখে জলজ্যান্ত খাদ

কান্নার কত রং ঢং ঢং বাজে, চোখ ভিজে যায়

জল তো পড়ে না!

 

অতিসুখে গোবর্ধন কাঁদে, ফাঁদে পড়ে খাদ

কোন সুখ টুকটুকে লাল, ভালো করে

বুঝতে পারে না।

যেমন বুঝতে পারে না মা, যমজের কোন শিশু

তার ডাকে মাঝরাতে ঘরে ফিরে আসে

শুঁড় দিয়ে তার পেটে অকপটে ঢুস মেরে দেয়!

 

ভালোবাসা জ্বাল দিয়ে দেখি, সর পড়ে কিনা

আমি জানি, খাদঅলা প্রেম জলেও ডোবে না!

তুমিও কি জানো?

 

‘জল পড়ে পাতা নড়ে’, তুমিও কি পড়ো?

তাই আমি পাতা হয়ে নড়ে নড়ে দেখি তিলে তিলে

কতটুকু তুমি জেগে আছো আমার অক্ষরে

কতটুকু তুমি ভর করো কবিতার ধড়ে

কতটুকু তুমি দেশলাইয়ের কাঠির মতো ধক করে

জ্বলে ওঠো আমি ডাক দিলে?