তুলনামূলক সন্ধি

লেখক:

হাবীবুল্লাহ সিরাজী
সামান্য ঠেলেঠুলে
কিংবা একটু কাত ক’রে
রাতকে গর্তের মুখে নামিয়ে দিলে
অথবা গুহার ঘাড়টি সোজা রেখে
অন্ধকারে চুবিয়ে নিলে
ভূগোল বই খুলতে পারতাম।
বরফপাতের দৃশ্যটি এখনো অমুদ্রিত …

হইচই ক’রতে-ক’রতে ভূমিকম্প বেরিয়ে প’ড়লো
যতোটা স্পর্শ করা যায়
একটু টেনে
বা কাঠ-খড় দিয়ে কিছুটা হ’লেও আগলিয়ে
যদি বুঝ দেয়া যেতো
রাঙা প্রভাত এবং গরম ভাত
তখন ইতিহাস কেউ না কেউ লিখতো।
রাস্তায় যেমন জ্যাম
আলেকজান্ডার ফিরি ক’রছে পিস্তা-বাদাম…

তারো বাইরে
নক্ষত্রপুঞ্জের দিকে তাকিয়ে
চরিত্র নিয়ে এক প্যারাগ্রাফ এগোতে গেলে
সেটিও ভার্চুয়্যাল
তবে কি কেবল দশ আঙুলের বাইরে
গোলমরিচের মতো এক পশলা ঝাল?