দুটি কবিতা

লেখক:

মারুফুল ইসলাম

পথ

অমৃতের অন্বেষণে যাই আলো আর অন্ধকারের অরণ্যে

দেহতত্ত্বে মুক্তি খুঁজি পাইনি কূল

ওখানে নৌকোর মাস্ত্তলে নিঃসঙ্গ লণ্ঠন

সারারাত জ্বলে জ্বলে অবসিত

 

ভয় নেই চলায়

পথ অচেনা বটে, তবে আমিও নাছোড় পথিক

তুমি কোন উদ্যানে সুশোভন করতে চাও নিজেকে

প্রশ্ন করে জেনে নাও এই বেলা

 

কেননা পাথেয় ফুরিয়ে যায়

কিন্তু ফুরায় না পথ।

 

 

কিছু কিছু প্রশ্ন

 

কিছু কিছু প্রশ্ন শুধু প্রশ্নের আকারে থেকে যায় সারাজীবন

কখনো উত্তর খুঁজতে ইচ্ছে করে

কখনো করে না

এইমতো ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে পড়ি

আচ্ছা, ঘুম কি মৃত্যুর কথা বলে, নাকি জীবনের

 

আমার আঙুল ছুঁয়ে জানিয়েছিলে

বৃষ্টিতে ভিজতে তোমার ভীষণ ভালো লাগে

সেই থেকে কত কাল বৃষ্টিতে ভিজেছি

আমূল স্পর্শ করতে চেয়েছি তোমার অনুভব

কিন্তু পারিনি

কেন পারিনি সেই প্রশ্ন আজো আমার মর্মে গেঁথে আছে

 

বলেছিলে, চৈত্রের ফিনকি-ফোটা জ্যোৎস্নায়

আমাকে গান শোনাবে

শোনাতেও চেয়েছিলে বহুবার

কিন্তু আমি শুনতে চাইনি

বাঙ্ময় সংগীতের চাইতে বরং

নীরবতাকেই হিরণ্ময় মনে হয়েছিল আমার

কী কারণে এ-রকম মনে হয়েছিল

সেই প্রশ্ন এখনো চৈত্রের রাতে নক্ষত্র হয়ে জ্বলজ্বল করে