দুটি কবিতা

অতনু ভট্টাচার্য্য

 

কৃষ্ণ

সত্মব্ধতার মাথায় উঠে কাঁপে। তাল

সুরের সাথে নাচবে তাই এটুকু দেখভাল।

আঁচলে গিঁট দিয়েছে আর মনের ধুকপুক

হাস্নুহানা গন্ধ-মাখা সোনারসিন্দুক!

 

এবং যদি তাকিয়ে চোখ, পলকে-অপলকে

গুপ্তধন মিলতে পারে অশ্রুবিভালোকে।

 

সত্মব্ধতাও রমণী হয়! কাজল পরা চোখ

চাইছো যদি কৃষ্ণ হওয়া – সামান্য দুর্ভোগ!

 

ঢেউ

সেই      অজানা দ্বীপে যেতে হবেই যদি, আর

তখন মেঘেদের উড়েছে চুল।

রাত     খুলে রঙ্গ করে ততই ভয়ে বাঁধে

গুপ্ত-গল্পের আলেয়াস্কুল!

তাই      এবার চলে এসো যাবেই যদি স্থির

অনেক ভাবনাই সহজ নয়

যেই      দেখছি পাখি তার বর্ণপ্রসারণে

বিভঙ্গস্বভাবেতে স্পষ্ট হয়।

তার     ভাবনা জানি না তো অন্ধ হয়ে আছি

গ্রহের ফেরে, শুধু স্বভাবত।

এই       মনের ভেতরে অজানা দ্বীপেরা

ভাসছে ওই! ঢেউসংগত!

Leave a Reply

%d bloggers like this: