ফেরা

রানা সরকার

বনবিতান থেকে উঠে আসে আমার বিনীত সুজন –
মধুমাসে হাওয়া বদলের দিন ফেরে, ফিরে আসে বসন্ত নূতন –
এখন পীড়িত প্রতিবেশীর দুঃখকে বড়বেশি ঋতুকালীন মনে হয় –
অরণ্যের মাদকতায় চেনা গঞ্জের দুপুর ছোট হয়, মিলিত ছায়ায়।

প্রিয় রোদে মুক্ত নিশান ওড়ে একা, দুপুরের গুম্ফার ছায়া অচেতন পড়ন্ত বেলায় –
সুখী নীড়ের পাখি খড়কুটো ফেলে রেখে বাসাবদলের খোঁজে অজানা খেলায়;
সমতলে বৃষ্টির সোহাগ মেখে শীত নামে সুকোমল দূরের গাঁয়ে –
পতনের শব্দ নিয়ে বর্ষা ফেরে, ঋতু নীল আলো গিয়েছে ফুরায়ে –

বিষাদের চালচিত্রে ঋতুরা গিয়েছে ফিরে রঙিলা বিহুর দেশে, অচেনা নবীন
নগ্ন ভুবনের মাঠ ক্ষতচিহ্নে বহুকাল এলোমেলো, এখনো অ-চিন -,
মেঘমুলুকের ছায়া মিশেছে গভীরে আজ, পোড়ামাটির বুকে বসেছে স্বয়ম্বরা –
অমল শস্যের ফলন সোনা রঙে সেজে আছে, মোহিনী অপ্সরা।

প্রবাসে দৈবের বসে ফিরেছি নিজের কাছে, অনাদায়ী শস্যের বাগানে –
সোহাগের কথাচিত্রে ফিরে আসে অচেনা প্রহর, ঋতু বাসরের দিনে -।

Leave a Reply

%d bloggers like this: