বাউল দুপুর

রাতুল দেববর্মণ

বাউলদুপুরে যদি একা হয়ে যাই
শুনি মেঘের আড়ালে আত্মীয়ের কান্না
নীরবে শূন্য স্বপ্ন তখন রুদ্রঠোঁটে চুমো খায়

এই খরতাপে ভেঙে পড়ে ভেঙে যায় নিদ্রাসমগ্র
সমূহ কান্নার ধ্বনি ক্রমাগত অন্ধ পাখির মতো
ঠোকাঠুকি করে আর চোখের ভাষা খুঁজে যায়

এই বাউলদুপুরে যারা প্রিয় ছিল একদিন
রৌদ্র খেয়ে নিত যারা ত্রিপুরা থেকে ভিয়েতনামের
তাদেরও কী ঠোঁট পুড়ে যায় প্রখর তাপে

দুঃখ করো না তুমি বাউলদুপুর
দুঃখ করো না তুমি খরতাপ রোদ্দুর
প্রতিবেশী গাছেরা দেখো হাওয়ায় দোলে
পাখিরা এসে সব ওড়ে পাখা মেলে

শূন্য দিনের শেষে নিরন্তর আলো
সরব কান্নার শেষে কে সে জাগালো

 

Leave a Reply

%d bloggers like this: