আমাকে কাটছো ক্ষমতার কুড়াল, ক্ষতবিক্ষত

শরীর নিয়ত নুয়ে পড়ছে মাটির দিকে

সাদা রক্তের নহর ছুটছে দিগি¦দিক

আমাকে কেটে যাচ্ছো ধারালো কুড়াল, উজাড় বনজুড়ে

জাগছে মরুর ক্ষতচিহ্ন, ছায়ার আড়াল ভেঙে

একচোখা রাগী সূর্য ঢেলে যাচ্ছে বর্ষীয়ান বহ্নি

অশেষ সবুজ মরে পড়ে আছে পাতার কঙ্কাল

আমাকে কাটছো তুমি অবোধ কুঠার, দেখো

কেটে যাচ্ছে কালের ধমনি, বায়ুশূন্য ফুসফুস

আকাশছোঁয়া অট্টালিকায় দমবন্ধ আবহাওয়ায়

দামি আসবাবপত্র সেজে শুয়ে থাকি

বোকা কাঠুরিয়া, ঘুণে ধরা তোমার কুড়াল

একদিন গাছদের মৃতদেহ খুঁজে পাড়ি দেবে মরু

তীব্র শ্বাসকষ্টে ভোগা ধড় খুঁজবে একটি তরু মানুষের পৃথিবী সেদিন বেশুমার পোকার সংসার …

Leave a Reply