ভবিতব্যের বেড়া

লেখক:

মাহবুব সাদিক

ছেড়ে যাচ্ছে ময়ূরের মতো নীল প্রশামিত্ম আমার,

সামনে রয়েছে পড়ে নিঃসঙ্গতার দিকচিহ্নহীন

বিমূর্ত খেত-খামার –

এরই মধ্য দিয়ে বয়ে গেছে বাংলার বিখ্যাত নদী

তবে তার তীরে মরে গেছে

ফনফনে আকন্দের ঝাড়,

কেবল বর্ষায়ই তামিঠে জলাধার – আর তখন

বাদাম উড়িয়ে আসে দুঃখের ভরা নাও;

যত আমি সরল আর নিষ্পাপ চোখে দেখি সবকিছু

বাস্তবের নৌকা তবু যেতে থাকে এদিক-ওদিক

কখনো-বা আকাশ পানেই –

তবে কি একালের মালস্নারা সব কষে কল্কে টানে

দুহাতের কৌশলী খাঁজে এবং

স্বপ্ন দেখে বনবীথির ভেতর দিয়ে বৃষ্টি মাথায় উড়ে যাবে

নিজেদের কাঙিক্ষত ডেরায়?

 

একে একে ছেড়ে যাচ্ছে সব; ঝাউবনের ভেতর দিয়ে

শনশনে বিকেলের হাওয়া অকস্মাৎ থমকে গেছে আজ

ভারি আর খাঁজকাটা কালো মেঘে ছেয়ে গেছে

প্রসন্ন আকাশ – আর নেমেও এসেছে খুব নিচে,

কোথাও বাতাস নেই –

কেবল মধ্যরাতেও ফাঁকা আমার শোবারঘর যেন

মরা জোছনার সবুজ জলে ডুবে হাঁসফাঁস করছে

শ^াস নেবার জন্যে;

 

ছেড়ে যাচ্ছে ময়ূরের মতো নীল প্রশামিত্ম আমার,

নিভে গেছে সন্ধ্যার গোলাপি আকাশের প্রিয় নীল তারা –

সামনে রয়েছে পড়ে দিকচিহ্নহীন নিঃসঙ্গ আঁধার

আর আগুনমাখা এক ঘোরলাগা ভবিতব্য আমার \