শিস

শেলী নাজ

প্রেমিক আঙুল ছিল পর্যটক আমার শরীরে
কী প্রবল নেশা অথচ বারণ
ক্ষীর জমে মন্থনের পর, চামড়ায় তীব্র শরে

বৃত্তের বাইরে চাঁদ, গনগনে জোছনার ফেনা
ডানায় পাথর বাঁধা, কলঘরে রাধা, দূরে বাঁশি
ছারখার যে জাহাজঘাট তাতে মাস্ত্তলের প্ররোচনা

থাকি আনতনয়না, অধোবদনের লজ্জামাখা
গুটাচ্ছি পিরান, ভয়ে ফেরাই সংকেত
সমাজে প্রহ্লাদশ্রেণি, নেশাভান্ড আম্রপালি ঢাকা

জানালা গলিয়ে আসে প্রতিবেশী জিরাফের গলা
আমাকে ধমক দেয়, তর্জনী শাসায়
পাতায় জমেছে রস, ফেঁপে ওঠে কোষ, যারা রজঃস্বলা

একা ঝিম মেরে পড়ে থাকি, খাই লাঞ্ছনার নুন ও নিরামিষ
শীত না বসন্ত? কানে তুলো, পিঠে কুলো, দূরে অনন্তের শিস!

Leave a Reply

%d bloggers like this: