জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ১১ অবন্তিকে বিদায় দিয়ে ফের বেডরুমে এলো ঋভু। বিছানাটা এলোমেলো হয়ে আছে। মুচকি একটু হাসলো সে, অনেক ঝড় বয়ে গেছে বেচারা বিছানার ওপর দিয়ে, বহুদিন পর। থাকুক, ওভাবেই […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ১০ আড্ডা আর তেমন জমলো না। হাসি-ঠাট্টা-তামাশা-দুষ্টুমি সবই হলো, কিন্তু ঋভু ঠিক অংশ নিতে পারলো না। সেও হাসলো বটে, কথার পিঠে কথাও বললো, কিন্তু বারবার মনে হতে লাগলো, […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ৯ বাড়ির সামনে নেমে অবাক হয়ে গেল অবন্তি। এখানে সে অনেকবার এসেছে, কিন্তু এই বাড়িতে নয়। অনেক বছর আগে যখন এখানে আসতো সে, অংশু কিংবা ঋভুর সঙ্গে, তখন […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ৮ সকালে ঘুম ভাঙতেই অবন্তির মনে হলো, আজ সে কোথাও যাবে না। অবশ্য অংশু আর ঋভুর সঙ্গে আড্ডায় যাওয়া ছাড়া গত কয়েক দিনে অন্য কোথাও যায়ওনি সে। আজ […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ৭ অবন্তি আর অংশু চলে যাওয়ার পরও ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে রইলো ঋভু। এখান থেকে রাস্তার বেশ খানিকটা দেখা যায়। ওদের গাড়িটা চোখের আড়াল হয়ে যাওয়ার পর কেমন এক শূন্যতাবোধ […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ৬ অবন্তিকে পৌঁছে দিয়ে ফেরার সময় অংশুর ইচ্ছে করছিল আরো কিছুক্ষণ পথে পথে ঘুরে বেড়াতে। শহরের নানা প্রান্তে তার নকশায় নানা স্থাপনা তৈরি হয়েছে। মাঝে মাঝে সে একাই […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

পর্ব : ৫ ডিনারের পর অবন্তি যখন গভীর মনোযোগ দিয়ে ঋভুর সংগ্রহ করা ছবিগুলো দেখছিল আর ঋভু গিয়ে ওর পাশে দাঁড়িয়েছিল, অংশু দূরে দাঁড়িয়ে সেই দৃশ্যটির দিকে কতক্ষণ মুগ্ধ চোখে […]

Read more
জলের অক্ষরে লেখা

যদি এই চিঠি তোমার কাছে পৌঁছে থাকে, তাহলে দয়া করে একটু জানাও। তোমার যে ভুলোমন, এখনই জানাও প্লিজ, নইলে ভুলে যাবে। – এই কথা লেখা ছিল চিঠিতে। নিচে নাম লেখা  […]

Read more
অ্যামেলিয়া

           ॥ ২৩ ॥ চারিদিকে অন্তহীন সবুজ। যতদূর চোখ যায় কেবল ভুট্টা, বিন, পালং, সেলেরি ক্ষেত। তার মধ্যে দিয়ে মসৃণ পথ। ক্ষেতখামার ভরা স্থানমাত্র যদি গ্রামাঞ্চল হয়, তবে, অমলিনী ভাবছে, […]

Read more
অ্যামেলিয়া

॥ ২২ ॥ ১৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার … পথ মসৃণ, তবু রক্ত লেগে থাকে, ভাবি স্বর্গে আছি,          কিন্তু ছিলাম নরকে। এক মাস পূর্ণ হলো রাইটাররা আইওয়ায় এসেছে। আজ সব শিকাগো […]

Read more