রূপকথা

নাসরীন জাহান   উড়ছিলাম। খাঁ-খাঁ দুপুরে এক বিশাল আসমান জুড়ে। একাকী। ডানার রোমগুলো রিমঝিম রোদ্দুরে ঝলসে উজ্জ্বল করে তুলছিল আমার অবয়ব।   বন্ধুরা কি দুপুরঘুম দিচ্ছে? অদ্ভুত এক বিষণ্ণতা আচমকা […]

Read more
পরগাছা, অথবা অগ্নিস্রোতের ঢেউ

দুপাশের ঝাঁক ঝাঁক প্রকৃতি উদ্ভ্রান্ত হয়ে পেছনদিকে পালাচ্ছে। গাড়িটা ছুটে চলছে। মুরাদের এই এক স্বভাব, নিজের মরদাঙ্গি দেখাতে প্রায়ই বেপরোয়া হয়ে পড়ে। এই স্বভাব এমনই তার রক্তে-মাংসে মিশে থাকে, ওমরের […]

Read more
অন্যতমা অন্যদিকে যায়

নাসরীন জাহান আমি বিমূঢ়, সত্মব্ধ বিস্মিত, ধেয়ে আসছে নদীটি… যার স্রোতের নির্মল ঢেউয়ে প্রচ্ছন্ন ছায়া ফেলছিল অরেঞ্জ রং… ভাঁজে-ভাঁজে যেন আকাশের মেঘ… তুলো-তুলো কখনো, কখনো হরিণ… হাতি… কিন্তু আমি জলের […]

Read more
শহর অথবা একটি গতানুগতিক গল্প

নাসরীন জাহান দীর্ঘ পঁয়তাল্লিশ বছরের জীবনে যাকে কোনোদিন মনে রাখার মতো একবিন্দু অসুস্থতা স্পর্শ করেনি, সে একদিন সন্ধ্যায় বাইরে থেকে ফিরে বিছানায় শুয়ে পড়ল। তার স্ত্রী উঠোনটাকে ধোঁয়ার আখড়া বানিয়ে […]

Read more
তারপর? প্রেম তারপর? যৌতুক : তারপর? অনন্ত আঁধার অথবা…

নাসরীন জাহান আমাদের দুজনের মধ্যে গভীর প্রেম… কবে থেকে? বিয়ের পর থেকে… ধীরে ধীরে দুজন অনুভব করেছি। বিয়ের আগে? হ্যাঁ! তখন তো আমাদের পরিচয়ই ছিল না, মা-বাবাকে কনভিন্স করে যৌতুকহীন […]

Read more