আত্মহত্যা ও কয়েকটি আখ্যান

আহমেদ দীন রুমি

আত্মহত্যা করতেই বের হয়েছিলেন অন্ধকারে।
বেয়ে উঠেছেন লম্বা মেহেগনি গাছ,
হাতে নাইলনের দড়ি,
ঝুলে গেলেই শেষ,
অথচ ডালে বসেই ঘুমিয়ে গেলেন ক্লান্তিতে,
জীবন আপনাকে কিছুই দেয়নি ক্লান্তি ছাড়া।

বিবসনা তরুণীর মতো বুক খুলে রাখে সমুদ্র
আপনি হত্যা হবেন বলেই ঝাঁপ দেন,
নোনাজল মুখে লাগে,
ডুবে যান
আরো ডুবে যান,
হঠাৎ ঘাড়ে ধাক্কা খেয়ে আছড়ে পড়েন সৈকতে,
ঘাড়ধাক্কা ছাড়া আপনাকে কিছুই দেয়নি জীবন।

সায়ানাইড দুষ্প্রাপ্য তাই আসে ইঁদুরের বিষ,
রাতের খাবার হয়ে সেইটাই পেটে তুলেন আপনি,
আপনার মাথা ঘোরে, মুখ নীল হয়
বুক জ্বলে
বুজে যায় চোখ
চমক দিয়ে কেনো যেনো জ্ঞান ফিরে ফের,
জীবন আপনাকে দিয়েছে শুধুই হতাশার চমক।

আপনি বুঝেন, অমরত্ব কতো বড় অভিশাপ,
জীবন লম্বা হওয়া কতো প্রয়োজনহীন,
অথচ মৃত্যু আপনাকে বোঝে না।
মৃত্যু বোঝে, মৃত মানুষের কাছে মৃত্যুকে আসতে হয় না,
জানে, আত্মহত্যার চেষ্টা করার আগেই মৃত আপনি,
মরেছেন অন্তত সাতাত্তর বার।
ঘরে এবং বাইরে,
হাটে এবং বাজারে,
বন্ধু এবং শত্রু এমনকি অপরিচিতের হাতে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: