সকালটা নগদে কিনে, বিকেলটা ধার-কর্জ করে

সন্ধ্যায় ফুঁ দিলাম তন্দুরী-সেঁকা লাকড়ি-চুলোয়।

রাতে আটা-সুজি নিয়ে হাতে গড়া

খানতিনেক রুটি সাজালাম নিজ ডাইনিংয়ে।

আউলা-ঝাউলা সময়টাকে গাণিতিক বাক্যে টানি

আরো কিছু গুণিতক, গুণনীয়ক, ল,সা,গু করে

তামসে সাজাই কলাবউ।

বাস্তুশিল্পে ব্যস্ত মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে

কপিলা কন্দলী ঘরে ঘরে তুলি।

Leave a Reply