হে শহিদ

লেখক:

মোহাম্মদ রফিক

 

শত্রুপক্ষ প্রেমের, মানব-মানবীর

রাষ্ট্র, দুষ্ট-রাজনীতি, সরকার-কাঠামো,

ক্ষমতার দম্ভ, লোভ, কামার্ত লালসা,

 

ইতিহাস, দীর্ঘ সিঁড়ি বেয়ে তৈরি সব সুরম্য প্রাসাদ,

অত্যাচারী, শাসক-শোষক, ফড়ে, বেনিয়া, বাইদ্যার

দলবল, অনুচর, ছুরি-কাঁচি হননের, নরমেধযজ্ঞ অতঃপর

 

অনুভব, অনুভূতি, উষ্ণ আবেগের টান, স্বার্থ-পরিপন্থী,

সুতরাং ধ্বংস করো, যেখানেই পাও, এভাবেই চলবে, চলে

যদি না আমূল পালটে যায়, বা পালটানো যায় উপড়ে ফেলে নাটকের ভিত,

 

কলা ও কৌশল, ভাষা, আচার-প্রচার, নিত্যদিন

ভাসমান মূল্যবোধ, ন্যায়-নীতি, ব্যবহৃত ছলাকলা,

ভেসে যায় জন-মানুষের স্রোতে, পেশল বাহুর সৃষ্টিখাতে,

 

হে শহিদ, তোমাদের আত্মত্যাগে, আত্মোৎসর্গে,

রক্তের ধারায়, জন্ম নেবে মহাবোধিবৃক্ষ এক

নবোদ্যমে, প্রেরণায়, খুলে ফেলে পিঞ্জিরার

দ্বার, পাখা মেলে প্রাণপাখি

 

নদ্যা-মহুয়ার, দিকে-দিকে, দেশ-দেশান্তরে, চুম্বনের প্রগাঢ় আস্বাদে

পান করে অমৃতের ধারা দেহে-দেহান্তরে, বিমুক্ত বিস্ময়ে,

অধিকারে, সমুজ্জ্বল মর্ত্য-পাতালের কণ্ঠে-কণ্ঠে গান ধরে সর্বজয়ী আনন্দ উৎসব!