অনির্বাণ দীপ

লেখক:

মাহবুব সাদিক

অমলিন কোনো এক পস্নুত প্রত্যুষে কেউ

চেতনায় দিয়েছিল জ্বেলে এক অনির্বাণ দীপ –

হয়তো তা ছিলো কোনো

প্রাকৃত মুক্তার মতো দ্যুতিগর্ভ জ্বলজ্বলে কিছু –

নাকি তাও ছিল ভোরের রোদের নিচে

কচুপাতার আধারে জমা হিরের বিভ্রম!

বাসত্মবের ভূত বলে

শীতরাতে জমে-থাকা টলমলে শিশিরের জল!

 

জানি সেই মৃদু দীপশিখা

চেতনার জলে শুশুকের মতো ঘাই তুলে

আমাকে দুলিয়ে দিয়েছে কোন অসীমের দিকে

সেই ঢেউ দুলছে এখনো

কল্পনা তার নক্ষত্রের যানে তুলে আমাকে নিয়ে

অবিরাম ঘুরেফেরে আকাশে-পাতালে

মানবের দশ মহাদেশে

মাঝে মাঝে আমি নেমে যাই কোনো রহস্যেঘেরা

বিচিত্র বদ্বীপে –

সেইখানে গাছ নেই পাতা নেই ঘাসের সবুজে

ফুটে আছে গুচ্ছ গুচ্ছ বেগুনি রঙের ভুঁইচাঁপা,

 

চেতনায় অনির্বাণ দীপ হয়ে এতকাল এরাই ফুটেছে।