দাহ

লেখক:

অলোকরঞ্জন দাশগুপ্ত

প্রায় প্রত্যেকে চুলিস্নতে দেবে বলে

এনেছিল কাঠ, অমিতেশ কোথা থেকে

নিয়ে এসেছিল প্রিয়ঙ্গুশাখা, অরম্নণেশ এনেছিল

কাকডুমুরের একখানি ডাল সুগন্ধে আমোদিত,

আগুনে আমায় সেঁকবার মুখে আমি বলে উঠলাম :

‘কোথায়, তোমরা শিশুগাছ থেকে মঞ্জুরি আনোনি তো,

তার ভালো নাম শিংশপা ফুল, কপিল বর্ণ তার,

আরেকটি নাম ভস্মগর্ভা, ভস্মাবশেষ থেকে

ছেঁকে নেয় সে তো দিব্য জীবন আরেক অমরতার

যতক্ষণ না সে-ফুল আমার চিতায় সমর্পণ

করবে তোমরা, জেনে রেখো আমি আদৌ হইনি মৃত

অর্থাৎ কিনা আমার মৃত্যু হয়নি সুচারম্নভাবে,

অর্থাৎ কিনা আমাকে নিয়ে তোমরা দিন কাটাবে…’