মাহবুব সাদিক

নদীটা উতল – ঢেউভাঙে, স্রোতে দোলে ভাঙে জল

এইখানে প্রায় দুইভাঁজে বাঁকফেরা নদী

তবু তুমি দেখছো তাকে অখণ্ড নদীই –

নিজেকে কি মনে হয় ওরকম অখণ্ডসত্তা কোনো?

এই প্রশ্নের মুখে নিরুত্তর আমার ঠোঁটচাপা বোধ;

জীবন টেনেছে খুব – টানায়-পোড়েনে ছিঁড়েফেটে শেষে

খণ্ড খণ্ড হয়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে গেছে সারা পৃথিবীতে

বেশিটাই স্বদেশের এখানে-ওখানে, বেশকিছু বিদেশে-বিভূঁইয়ে

কিছুটা কোথায় রয়েছে পড়ে কোন ডেভিলস এলবো-র ভাঁজে

হয়তো চিরকালই থাকবে অজানা –

কোনখানে কোন শব্দের জালে, ঘিঞ্জি কোন গলির চিপায়

পারীর পথে পথে কিংবা যুদ্ধের ক্রূরদিনে বাংলার শালবনে 

গুঙিয়ে-গড়িয়ে কানকো-মেরে পড়ে আছে টুকরো জীবন 

                   কে তাকে কুড়িয়ে নেবে কখন কোথায়?

আজ মনে হয় গভীর নির্জনে একা

কুড়িয়ে-কাড়িয়ে নিয়ে সেইসব টুকরোটাকরা

জোড়াটোরা দিয়ে নিজেকে গুছিয়ে নিই, সবটা পাবো না জানি –

নিজেকে অখণ্ডরূপে দেখাও হবে না                 হয়তো কেউ তা দেখেনি কোনোদিন ॥

Leave a Reply