জীবন-শরীর নিয়ে বস্তুত বিপাকে

লেখক:

হাসান হাফিজ
শরীর তো এক প্রকার সরীসৃপই। পুষ্টি ওম শর্করা আমিষ চর্বি
েস্নহমার্কা নানারূপ খাদ্য তার চাই, আরো চাই বিপরীত
শরীরের লুণ্ঠন কিংবা উপভোগ, রীতিনীতি নৈতিকতা হয়ে ওঠে
বাধার প্রাচীর কোনো লঙ্ঘনের ইচ্ছা কাম জেগে ওঠে মনেরই
নিভৃত কোণে, যার কোনো ব্যাকরণ ঔচিত্য বা অনৌচিত্য বোধ
ইষ্টানিষ্ট জ্ঞানগম্যি নাই…

জীবন তো একপ্রকার খোলামকুচিই। বানের প্রবল স্রোতে
ইচ্ছা ও স্বপ্নের শুদ্ধ বিপরীতে ভাসমান খাবি-খাওয়া প্রেম
নিরন্তর নাকানিচুবানি ক্লেশ কহতব্য নহে ভাই এমনই ছিদ্দত
বাতিল বর্জ্য সে খোসা, যাবতীয় দূষণের বিশ্বস্ত ও নিভৃত আকর
এক-এক রহস্যে প্লুত উপত্যকা অনতিউচ্চের শ্রান্ত গিরিশৃঙ্গ
আরোহণে পতনের আশঙ্কা প্রবল, তার মরীচিকা টানে
ওলটপালট গুম ছন্দরীতি সামাজিক নিয়মের তন্তুজাল
আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ভরিয়ে থাকা নিন্দাস্তুতি গায়ে মেখে
নির্বিকার ও উদাসীন আত্মমুখী থাকবার প্রশ্ন ও সুযোগ কিছু
নাই, নাই একেবারে ঠা-ঠা শূন্যতায়

শরীরের সঙ্গে নিত্য দেখা হয় জীবনের প্রজ্ঞা ও প্রস্তুতি নিয়ে
অদৃশ্যে কী বিনিময় হতে পারে দীর্ঘায়িত সুস্থিতি সংকেত
প্রশ্নকাঁটা বুকে নিয়ে মননে পরাস্তঘাম নিঃশব্দে হজম করে
মানুষেরা বেঁচে থাকতে, নির্লজ্জ ও উদাসীন বেঁচে থাকতে বাধ্য হয়
তাদেরও বিকল্প কিছু অধিকারে নাই…