কোথায় যে গ্যালো

কইছিলাম না তুমি পত হারাইবা? শ্যাষে ডাঙা না পাইয়া তুমি কই গ্যালা তন্নতন্ন কইরগা হারাডা জীবনভর খুঁজলাম কত! চেনাজানা যেহানে যেহানে ছিল, জিগাইছি কত কইছি দ্যাখতে ক্যামোন ছিল হরীতকী রং […]

Read more
কপিলা কন্দলী

সকালটা নগদে কিনে, বিকেলটা ধার-কর্জ করে সন্ধ্যায় ফুঁ দিলাম তন্দুরী-সেঁকা লাকড়ি-চুলোয়। রাতে আটা-সুজি নিয়ে হাতে গড়া খানতিনেক রুটি সাজালাম নিজ ডাইনিংয়ে। আউলা-ঝাউলা সময়টাকে গাণিতিক বাক্যে টানি আরো কিছু গুণিতক, গুণনীয়ক, […]

Read more
কথা

কথাদের যে এতোটা বিধ্বংসী শক্তি আছে তা জানা ছিল না আগে – আণবিক বোমার চেয়েও ভারী একটি-দুটি নয় শত শত হিরোশিমা-নাগাসাকি ধ্বংস করতে সক্ষম, হিরোশিমা-নাগাসাকি তবু বেঁচে উঠেছে – বেঁচে […]

Read more
না-পারার কবিতা

যতদূর দেখতে পাই ততদূর হাঁটতে পারি না যতদূর ভাবতে পারি ততদূর নামতে পারি না হাওরে নৌকায় বসে দেখি বিস্তীর্ণ জলের ওপারে ছোটবড় পাহাড় পাহাড়ের বাঁকে বাঁকে ঘাপটিমারা গ্রাম ঝর্ণায় স্নান […]

Read more
বাড়ি ফেরার গল্প

এসো বর্ষা, শুভ্র ডানা মেলে! হাত ধরো! হাতে হাত রেখে চলো হাঁটি নদীর তীর ধরে হাঁটতে হাঁটতে মেঘ-নামানো দিগন্তে মিশে যাই! জানো তো? এই সংসারে ফণাতোলা সাপের ভারি কদর! যদি […]

Read more
তৃষ্ণাদুপুর

ও সূর্য যৌবন দাও, ঢেলে দাও আলোময় অতল ফাগুন। শতাব্দীর দুঃখভরা গভীর বিষাদ দূর হয়ে যাক, দ্রুত – শনশন ঝড়ের বেগে উর্বরা হাওয়ায়। চরম সত্যের পথে যদি পাহাড়ের বাধা, তবে […]

Read more
শস্যকথা

বেলাভর মোহদানা মাটির শরীরে পুঁতে দিয়ে শব্দের কৃষক একা হেঁটে যান দূর ভাঙা-মন আলপথ ধরে। জীবন লিখিত হবে একদিন এই মাঠে খুব – কলমের নিখাদ আদরে।

Read more
কাঁটাতার

দেবাশিস দাশ অবিভক্ত মানচিত্র ভাষার নিজস্ব ধর্মে স্থির। পার্বতী নামের সেই মুসলিম ঘরণীকে দেখি আল ধরে হেঁটে যাচ্ছে বিষাদ-সন্ধ্যার মাঠে-মাঠে। দূরে, নদীরেখা ধরে বিভাজিত হয়ে আছে মাটি। এপার-ওপার তবু একই […]

Read more
অরূপ জলসা

মহল্লার সড়কগুলো জলমগ্ন হলে ফুরোয় না কথা তবুও বৃষ্টির কী-যে এতো কথা মনেতে আমার হাওরসুন্দরীর প্রেম জাগে, হাওরসুন্দরী ছোট ঘরটি হয়ে যায় জৌলুসময় প্রাসাদ জারুল হিজল পত্রে নেমে আসে পুরনো […]

Read more
দণ্ড

মাথার ওপরে চড়া রোদ কখনো বেদম বৃষ্টি-ঝড় শকুনের চোখ পাক খায়, পাক খায় উন্মত্ত ক্রোধ – হাজার কোটি প্রকরণ ভিড়ে কিছু গাছ থাকে; দানাসহ ফল ধরে বুক ফুঁড়ে-ছিঁড়ে – কতশত […]

Read more